মিঞা মুজিবুর রহমান :

সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ কোন ধর্মের কাজ নয়। বিশে^র শ্রেষ্ঠ ধর্ম সমূহের মৌলিক গ্রন্থে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গীবাদকে সমর্থন করে না। কোন ধর্মের কোন মহামানব সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখেন নি। তথাপিও বিভিন্ন ধর্মের নাম ব্যবহার করে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের সৃষ্টি করা হচ্ছে বিশ^ব্যাপী। সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের ভয়ে মানব জাতি আজ সদা সতন্ত্র। বর্তমানে মধ্য প্রাচ্যের আই এস ইজরাইলের ইহুদিবাদী সন্ত্রাস ভারতের আরারেশে সাম্প্রদায়িক কর্মকা- বার্মার সামরিক সরকারের অধীনে  বৌদ্ধদের রোহিঙ্গা নির্মূল অভিযান কোনটিই কোন ধর্মই সমর্থন করেনা। তথাপিও এই সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ অব্যাহত রয়েছে। প্রতিদিন বাংলাদেশসহ সারাবিশে^ সকল টেলিভিশন টকশোতে প্রধান আলোচ্য বিষয় হিসেবে ওঠে আসছে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ নির্মূূরে উপায় উদ্ভাবনের গবেষণার বিষয়টি। বিশে^র সকল পত্র - পত্রিকায় রাজনীতির মাঠে ময়দানে একই কথা। কিন্তু অদ্যবদী এর মূল কারন ও সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ নির্মূলে কোন উপায় উদ্ভাবন করতে পারছেনা। এ প্রসঙ্গে বিশে^র বিশেজ্ঞদের অভিমত সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ সৃষ্টিতে মূল ভূমিকা রাখছেন আন্তর্জাতিক অস্ত্র প্রস্তুত কারক ও অস্ত্র ব্যাবসায়ীরা। বিশে^ সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সৃষ্টির মাধ্যমে যুদ্ধের পরিবেশ সৃষ্টি করে অস্ত্র বিক্রির মাধ্যমে প্রচুর অর্থ উর্পাজন করাই মূল লক্ষ। সমস্ত ব্যবসায়ী, রাজনীতির স্থিতিশীলতা প্রয়োজন। আর অস্ত্র ব্যবসায় গোটা বিশে^ অশান্তি সৃষ্টি করে যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা এবং যুদ্ধ বাধিয়ে দেওয়ার ভেতরেই অস্ত্র বিক্রির পথ প্রসস্থ হয়। পৃথিবীতে সব চেয়ে লাভ জনক ব্যবসা হচ্ছে অস্ত্রের ব্যবসা। আর তারা হচ্ছে ইহুদীবাদী গোষ্ঠী। ইহুদীবাদের সংগঠন মোসাদ এর মাধ্যমে গোটা বিশে^ শাসন , শোষণ ও সন্ত্রাসবাদ চালিয়ে যাচ্ছে ইহুদীবাদীরা। তারা আজ বিশে^র কোন পরাশক্তিকেই তোয়াক্কা করছেনা। এমনকি জাতি সংঘকেও থোরাই কেয়ার করছে। ইহুদীবাদরা এখন আধুনিক মানব সভ্যতার জন্য হুমকিতে দাড়িয়েছে। এর থেকে পরিত্রানের জন্য জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মানব জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ইহুদীবাদীরা একদিকে সমস্ত ধর্ম বিশ^াসের মূলে কোঠার আঘাত করে সমগ্র বিশ^ থেকে ধর্ম বিশ^াসের মূলৎ উৎপাটন এর কাজ করছে। অন্য দিকে ইহুদ ধর্মকে নিরঙ্কুশ ধর্ম বিশ^াসের উপর প্রতিষ্ঠা রাখার কাজও একই সাথে করে চলছে । মানব  জাতিকে ধর্মীয় বিশ^াসেরে মূলৎ উৎপাটন করে নাম পরিচয়হীন কাজ চলছে।

অন্যদিকে নিজ ধর্মে পরিচয় একমাত্র বলিষ্ঠ জাতি হিসেবে বিশ^ শাসন করে শান্তি অর্র্জন করে বিশ^মানব পরিচালনায় কার্যবলী দীর্ঘ দিন যাবৎ করে আসছে। বিশ^ শাসনের লক্ষে তাদের পরিকল্পনা, কর্মকা- এখন চুড়ান্ত রূপ পরিক্রম করছে। তারা তৃতীয় বিশ^ যুদ্ধ বাধিয়ে মানব সভ্যতার ধ্বংস করে নতুন করে ইহুদ বাদশায় বিশ^মানব প্রতিষ্ঠা কাজে বল পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে। এই ভয়ংকর  মোকাবেলায় মানব জাতিকে ঐক্যবদ্ধভাবে বিশ^ সভ্যতা রক্ষার জন্য এগিয়ে আসতে হবে। অন্তত একটি ইস্যুতে মানব জাতির ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন আজ সময়ের দাবি। এই সমস্যা উত্তরণের জন্য সারা বিশে^র সংবাদ পত্র পত্রিকার লিখনী ও রেডিও টেলিভিশনের টকশো আলোচক পরিবর্তন করা অপরিহার্য। বর্তমান যারা পত্র পত্রিাকাও রেডিও  টেলিভিশনের আলোচক তারা সবাই হাতুরে ডাক্তারের রোগী চিকিৎসার মতামত দিচ্ছেন। কাজেই বিশেজ্ঞ চিকিৎসকের খুবই প্রয়োজন। সেহেতু প্যাথলোজিক্যাল টেষ্ট রিপোর্ট অনুযায়ী ধর্মহীনতায় এই সমস্যার মূলকারণ। এই সমস্যা সমাধান একমাত্র ধর্ম বিশ^াসের মধ্যেই নিহিত রয়েছে।



 

আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
২০ জানুয়ারি ২০১৮
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
একটা নদী উপহার পেয়েছি রটনার মত ছড়িয়ে যাচ্ছে , গুজব না সত্যি ! আমার একটা নদী আছে যদিও আমি নদী চাইনি চেয়েছি চাঁদ , তবু নদীই পেলাম বিস্তারিত
২০ জানুয়ারি ২০১৮
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের এক গৃহবধু দেবর ও ভাশুরের নির্যাতন, হয়রানিমূলক মামলাসহ বিভিন্ন কুৎসার হাত থেকে নিজের পরিবারের সদস্যদের বাঁচাতে সংবাদ সম্মেলন বিস্তারিত
২০ জানুয়ারি ২০১৮
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
ড্রিম ডিভাইজারের নিজস্ব উদ্ভাবিত স্বপ্ন- সুশিক্ষা- সুযোগ মডেলে সুশিক্ষায় স্বপ্নবুননে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করে। সুশিক্ষায় স্বপ্নবুননে বিশেষ আয়োজন হচ্ছে স্বপ্ন-আড্ডা। স্বপ্ন আড্ডার বিস্তারিত
© স্বত্ব বিএমটিআইনিউজ ২০১৫ - ২০১৭
সম্পাদক :
মিঞা মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক : শাহআলম শুভ
৩৭৩,দিলু রোড (তৃতীয় তলা)মগবাজার, ঢাকা-১২১৭
ফোন: ০২৯৩৪৯৩৭৩, ০১৯৩৫ ২২৬০৯৮
ইমেইল:bmtinews@gamil.com