টাইগারদের করা ২৬৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ম্যাচকে একেবারে নিজেদের হাতের মুঠোয় নিয়ে ফেলেছিলো আফগানিস্তান। ম্যাচ এতটা কঠিন হবে কে ভেবেছিল! অবশেষে আফগানদের হাতের মুঠো থেকে ম্যাচটা বের করে আনলেন সাকিব-তাইজুল-মাশরাফি এবং তাসকিন আহমেদ। শেষ মুহূর্তে এসে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর ৭ রানে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তাসকিন আহমেদের হাত ধরেই শেষ মুহূর্তে ম্যাচটির মোড় ঘুরলো বাংলাদেশের দিকে। এক ওভারে দুটি এবং শেষ ওভারে এক উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের মুষড়ে পড়া দর্শকদের মুখে হাসি ফোটালেন তিনি। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে আজ রোববার সফরকারী আফগানিস্তানের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে দুপুরে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে সব কটি হারিয়ে মাশরাফিরা সংগ্রহ করে ২৬৫ রান। ২৬৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করা আফগানিস্তানের ইনিংস গিয়ে অলআউট হয় ২৫৮ রানে। আফগানদের হয়ে ইনিংস শুরু করেন মোহাম্মদ শাহজাদ এবং সাবির নুরি। টাইগারদের হয়ে বোলিং শুরু করেন মাশরাফি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে তাসকিনের করা বলে স্লিপে ক্যাচ দেন মোহাম্মদ শাহজাদ। সেটি লুফে নিতে ব্যর্থ হন ইমরুল কায়েস। ইনিংসের সপ্তম ওভারের শেষ বলে মাশরাফিকে মোকাবেলা করতে গিয়ে উইকেটের পিছনে মুশফিকের গ্লাভসবন্দি হন মোহাম্মদ শাহজাদ। বিদায়ের আগে ২১ বলে তিনি করেন ৩১ রান। তার ইনিংসে ছিল চারটি চার আর একটি ছক্কার মার। পরের ওভারে সাকিবকে আক্রমণে আনেন মাশরাফি। দলপতির আস্থা রাখতে সাকিব এলবির ফাঁদে ফেলে তুলে নেন আরেক ওপেনার সাবির নুরিকে। আর এই উইকেটের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক আবদুর রাজ্জাককে (২০৭) স্পর্শ করেন সাকিব। দলীয় ৪৬ রানের মাথায় দুই ওপেনার ফিরে গেলেও বড় জুটি গড়েছেন রহমত শাহ ও হাসমতউল্লাহ শহীদি। এই দুই ব্যাটসম্যান জুটি গড়েছেন ১৪৪ রানের। ইনিংসের ৪১তম ওভারে সেই জুটি ভাঙেন সাকিব। বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়ে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন ৭১ রান করা রহমত শাহ। বিদায় নেওয়ার আগে এই আফগানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৯৩ বলে দুটি চার আর তিনটি ছক্কায়। দলীয় ১৯০ রানের মাথায় আফগানদের তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে। এরপর তাইজুল ফিরিয়ে দেন হাসমতকে। ব্যক্তিগত ৭২ রান করে ফেরেন ১১০ বলে ছয়টি চার হাঁকানো হাসমত। ৪৪তম ওভারে দলীয় ২১০ রানের মাথায় আফগানদের চতুর্থ উইকেটের পতন ঘটে। ইনিংসের ৪৬তম ওভারে মাশরাফির বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৭ রান করা নাজিবুল্লাহ জাদরান। দলীয় ২৩০ রানের মাথায় আফগানদের পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটে। ৪৮তম ওভারে তাসকিন ফেরান ৩০ রান করা মোহাম্মদ নবীকে। একই ওভারে টাইগার এই পেসার ফিরিয়ে দেন ১০ বলে ১০ রান করা আফগান দলপতি স্তানিকজাইকে। ইনিংসের ৪৯তম ওভারে রুবেল বোল্ড করেন রশিদ খানকে। শেষ ওভারে আফগানদের জয়ের জন্য দরকার ছিল ১৩ রান। তবে, তাসকিনের করা সেই ওভারের প্রথম বলে দুই রান নিলেও দ্বিতীয় বলে এলবির ফাঁদে পড়েন মিরওয়াইস আশরাফ। তৃতীয় বলে এক রান নেয় সফরকারীরা। চতুর্থ বলে আরও দুই রান তুলে নেয় সফরকারী ব্যাটসম্যানরা। পঞ্চম বলে লাইন মিস করে কোনো রান তুলে নিতে পারেননি দৌলত জাদরান। আর শেষ বলে জাদরানকে ফিরিয়ে দেন তাসকিন। নির্ধারিত ওভারে সবক’টি উইকেট হারিয়ে আফগানদের ইনিংস থামে ২৫৮ রানের মাথায়। এর আগে উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করতে নামেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। দৌলত জাদরানের করা ইনিংসের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলে ফিরে যান সৌম্য সরকার (০)।  দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে তামিম ইকবালের সঙ্গে ৮৩ রান সংগ্রহ করে আউট হন ইমরুল কায়েস (৩৭)।  মোহাম্মদ নবীর বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি। দলীয় ১৬৩ রানের মাথায় মিরওয়েজ আশরাফের বলে লং অফে নাভীন-উল-হকের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তামিম ইকবাল (৮০)। সেঞ্চুরি থেকে ২০ রান দূরে থেকে ফিরে যান তিনি। ৯৮ বলে খেলা তার ইনিংসে ৯টি চারের মার থাকলেও কোনো ছক্কার মার ছিল না। দলীয় ২০৩ রানের মাথায় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সাজঘরে ফেরেন। মোহাম্মদ নবীর বলে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিরওয়েজ আশরাফের তালুবন্দি হন মাহমুদউল্লাহ (৬২)। তার ৭৩ বলে করা ৬২ রানের ইনিংসে ৫টি চারের মারের পাশাপাশি ২টি ছক্কার মার ছিল। ২১৫ রানের মাথায় রশিদ খানের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে যান মুশফিকুর রহিম (৬)। আর ২২৭ রানের মাথায় ওই রশিদ খানে বলেই এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন সাব্বির রহমান (২)। এরপর ২৪৬ রানে ব্যক্তিগত ৪৮ রান করে আউট হন সাকিব। তার ইনিংসে ৩টি চারের মার ছিল। ২৫৪ রানে মাশরাফি, ২৬০ রানে তাসকিন ও ২৬৫ রানে তাইজুল ইসলাম আউট হলে বাংলাদেশের ইনিংসের ইতি ঘটে।



 

আপনার মন্তব্য
এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
১৮ জানুয়ারি ২০১৮
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
‘মানুষ অভ্যাসের দাস’- প্রবাদ-প্রবচনটি আমরা বাংলা ব্যাকরণে পড়েছি। কিন্তু অভ্যাস যখন উল্টো মানুষের কর্মচারী হয়, তখন কতো অবাক লাগে তাই বিস্তারিত
০২ জানুয়ারি ২০১৮
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
ভালো আছি! চশমাটা এই নিয়ে তিনবার ভাঙলো,তাও ভালো ফ্রেম, তাপ্তি দেওয়া যায়,যদি কাঁচ হতো ! শীতে একটা সোয়েটারের খুব দরকার,না থাক! এখন বিস্তারিত
৩০ ডিসেম্বর ২০১৭
বিত্রমটি আই নিউজ ডেস্ক
উৎসবমুখর পরিবেশে ১৯ বছর পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে সিনেট রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন-২০১৭। মোট ২টি কেন্দ্রে ১১৪টি বুথে সকাল বিস্তারিত
© স্বত্ব বিএমটিআইনিউজ ২০১৫ - ২০১৭
সম্পাদক :
মিঞা মুজিবুর রহমান
নির্বাহী সম্পাদক : শাহআলম শুভ
৩৭৩,দিলু রোড (তৃতীয় তলা)মগবাজার, ঢাকা-১২১৭
ফোন: ০২৯৩৪৯৩৭৩, ০১৯৩৫ ২২৬০৯৮
ইমেইল:bmtinews@gamil.com